শিরোনাম

BUP Capitalizer’22 এর চূড়ান্তপর্ব অনুষ্ঠিত

ঢাকা, ৪ ডিসেম্বর ২০২২:
বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালস (বিইউপি)-এর বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন ইন ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের তত্ত্বাবধানে পরিচালিত বিইউপি ফাইন্যান্স সোসাইটি দ্বারা আয়োজিত “MetLife Presents Capitalizer 22” এর চূড়ান্তপর্ব গত ০১ ডিসেম্বর ২০২২ তারিখে হোটেল লে মেরিডিয়ান, ঢাকায় অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান জনাব মোহাম্মদ জয়নুল বারী। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মেটলাইফ এশিয়া লিমিটেডের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট এলিনা বুতারোভা এবং মেটলাইফ বাংলাদেশের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আলা আহমান।

সারা দেশ থেকে ২৭টি স্বনামধন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের মোট ১৩৭টি দল এই ইভেন্টে অংশ নেয়। এদের মধ্যে সেরা ৬ টি দল প্রতিযোগিতার চূড়ান্তপর্বে উত্তীর্ণ হন। বিইউপি থেকে Team “Adverse Selection” ক্যাপিটালাইজার’২২ এ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে Team “Overwriters” এবং Team “Floor Price” যথাক্রমে প্রথম এবং দ্বিতীয় রানার আপ হওয়ার গৌরব অর্জন করে।

অনুষ্ঠানে অন্যান্য সম্মানিত অতিথিদের মধ্যে প্রফেসর ড. খোন্দকার মোকাদ্দেম হোসেন, প্রো-ভিসি, বিইউপি, ইন্স্যুরেন্স ডেভেলপমেন্ট অ্যান্ড রেগুলেটরি অথরিটি, মেটলাইফ বাংলাদেশ, বিভিন্ন সংস্থার উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা ও শিক্ষকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

আরও দেখুন

চুয়েটে হুয়াওয়ের ক্যাম্পাস রিক্রুটমেন্ট অনুষ্ঠিত

চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (চুয়েট) ক্যাম্পাস রিক্রুটমেন্টের আয়োজন করেছে বিশ্বের অন্যতম তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শেখ কামাল আইটি বিজনেস ইনকিউবেটরে অনুষ্ঠিত এমসিকিউ ও মৌখিক পরীক্ষার মাধ্যমে সম্প্রতি এ রিক্রুটমেন্ট সম্পন্ন করা হয়। চুয়েটের সিএসই, ইইই ও ইটিই বিভাগের প্রায় ২০০ শিক্ষার্থী এতে অংশগ্রহণ করে। সেখান থেকে নির্বাচিত শিক্ষার্থীরা হুয়াওয়ের সাথে কাজ করার সুযোগ পাবে। এই ইভেন্ট পরিচালনা করেন হুয়াওয়ে সাউথ এশিয়ার সিনিয়র এইচআর ম্যানেজার মো. ফারা নেওয়াজ, এইচআর ম্যানেজার ইফতেখার রহমান ও এইচআর এক্সিকিউটিভ মো. খালিদ হুসাইন। এ সময় চুয়েটের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. জামাল উদ্দীন আহাম্মদ উপস্থিত ছিলেন। এ বিষয়ে মো. ফারা নেওয়াজ বলেন, “বাংলাদেশের শিক্ষার্থীরা অনেক মেধাবী এবং তাদের মেধার সঠিক পরিচর্যা করা প্রয়োজন। এ কারণেই প্রয়োজনীয় দক্ষতা, উপযুক্ত কর্মপরিবেশ ও সুযোগ-সুবিধা দেয়ার মাধ্যমে তাদের মেধাকে সমৃদ্ধ করার জন্য কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরিতে হুয়াওয়ে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। সম্পূর্ণভাবে সংযুক্ত ও বুদ্ধিবৃত্তিক বাংলাদেশ গড়ার যে লক্ষ্য হুয়াওয়ের রয়েছে, সেটিকে এগিয়ে নিতে এসব শিক্ষার্থীদের মাঝে যে আগ্রহ রয়েছে, তা প্রশংসনীয়। বাংলাদেশের তরুণ প্রজন্মের জন্য এই ধরনের কাজের ধারাবাহিক সুযোগ তৈরি ও এটিকে আরো সম্প্রসারণ করার জন্য আমরা প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।” অধ্যাপক ড. জামাল উদ্দীন আহাম্মদ বলেন “হুয়াওয়ের এই ক্যাম্পাস রিক্রুটমেন্ট আয়োজন আমাদের শিক্ষার্থীদের জন্য নতুন সুযোগ তৈরি করলো। এর মধ্যে দিয়ে আমাদের যেসব শিক্ষার্থীর নতুন কিছু করার উচ্চাকাঙ্খা আছে, তারা স্বপ্ন পূরণের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *