শিরোনাম

প্রেসিডেন্সী ইউনিভার্সিটিতে “Alumni Professional Lecture Series” অনুষ্ঠিত।

 

প্রেসিডেন্সী ইউনিভার্সিটি অফিস অফ স্টুডেন্ট অ্যাফেয়ার্স অ্যান্ড ক্যারিয়ার সার্ভিসেস এর উদ্যোগে ১০ মার্চ, ২০২৪ রবিবার বিকেল ৩ টায় ইউনিভার্সিটির অডিটোরিয়ামে “Exploring Water Beyond The Faucet: Unveiling Hidden Expenses and The Vital Role of Treatment in Maintaining Health” শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে।

উক্ত সেমিনারে মূল বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রেসিডেন্সি ইউনিভার্সিটির সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রাক্তন ছাত্র মোঃ আবুল হাসানাত, রিসার্স স্কলার (PhD candidate), সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্ট, আই.আই.টি হায়দ্রাবাদ, ইন্ডিয়া।
সেমিনারে গবেষক হাসানাত খাবার পানি বিশুদ্ধকরণ প্রক্রিয়ার নানা পদ্ধতি সম্পর্কে আলোচনা করেন। পাশাপাশি পানি বিশুদ্ধকরণ প্রক্রিয়ার বিভিন্ন পদ্ধতিগুলোর সুবিধা-অসুবিধা গুলোর তুলনামূলক পর্যালোচনা উপস্থাপন করেন।
অধিকন্ত পানি বিশুদ্ধকরণ প্রক্রিয়া যে অত্যন্ত ব্যয়বহুল এবং তার অন্তর্নিহিত কস্টিং এর বিভিন্ন খাতগুলো নিয়েও আলোচনা করেন। তাছাড়া বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে পানি বিশুদ্ধকরণ প্রক্রিয়ার সহজসাধ্য ও লাভজনক সম্ভাব্য উপায়সমূহ নিয়েও সেমিনারে আলোচনা করা হয়।

উক্ত সেমিনারে আরো উপস্থিত ছিলেন প্রেসিডেন্সী ইউনিভার্সিটির বিভিন্ন বিভাগের প্রধানগন, শিক্ষক-শিক্ষিকা, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শিক্ষার্থীবৃন্দ।

 

আরও দেখুন

চুয়েটে হুয়াওয়ের ক্যাম্পাস রিক্রুটমেন্ট অনুষ্ঠিত

চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (চুয়েট) ক্যাম্পাস রিক্রুটমেন্টের আয়োজন করেছে বিশ্বের অন্যতম তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শেখ কামাল আইটি বিজনেস ইনকিউবেটরে অনুষ্ঠিত এমসিকিউ ও মৌখিক পরীক্ষার মাধ্যমে সম্প্রতি এ রিক্রুটমেন্ট সম্পন্ন করা হয়। চুয়েটের সিএসই, ইইই ও ইটিই বিভাগের প্রায় ২০০ শিক্ষার্থী এতে অংশগ্রহণ করে। সেখান থেকে নির্বাচিত শিক্ষার্থীরা হুয়াওয়ের সাথে কাজ করার সুযোগ পাবে। এই ইভেন্ট পরিচালনা করেন হুয়াওয়ে সাউথ এশিয়ার সিনিয়র এইচআর ম্যানেজার মো. ফারা নেওয়াজ, এইচআর ম্যানেজার ইফতেখার রহমান ও এইচআর এক্সিকিউটিভ মো. খালিদ হুসাইন। এ সময় চুয়েটের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. জামাল উদ্দীন আহাম্মদ উপস্থিত ছিলেন। এ বিষয়ে মো. ফারা নেওয়াজ বলেন, “বাংলাদেশের শিক্ষার্থীরা অনেক মেধাবী এবং তাদের মেধার সঠিক পরিচর্যা করা প্রয়োজন। এ কারণেই প্রয়োজনীয় দক্ষতা, উপযুক্ত কর্মপরিবেশ ও সুযোগ-সুবিধা দেয়ার মাধ্যমে তাদের মেধাকে সমৃদ্ধ করার জন্য কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরিতে হুয়াওয়ে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। সম্পূর্ণভাবে সংযুক্ত ও বুদ্ধিবৃত্তিক বাংলাদেশ গড়ার যে লক্ষ্য হুয়াওয়ের রয়েছে, সেটিকে এগিয়ে নিতে এসব শিক্ষার্থীদের মাঝে যে আগ্রহ রয়েছে, তা প্রশংসনীয়। বাংলাদেশের তরুণ প্রজন্মের জন্য এই ধরনের কাজের ধারাবাহিক সুযোগ তৈরি ও এটিকে আরো সম্প্রসারণ করার জন্য আমরা প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।” অধ্যাপক ড. জামাল উদ্দীন আহাম্মদ বলেন “হুয়াওয়ের এই ক্যাম্পাস রিক্রুটমেন্ট আয়োজন আমাদের শিক্ষার্থীদের জন্য নতুন সুযোগ তৈরি করলো। এর মধ্যে দিয়ে আমাদের যেসব শিক্ষার্থীর নতুন কিছু করার উচ্চাকাঙ্খা আছে, তারা স্বপ্ন পূরণের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *